শনিবার, ০৬ মার্চ ২০২১, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন

ট্রেডমার্ক রেজিষ্ট্রেশন করবেন যেভাবে

  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ১৮ জুলাই, ২০২০
  • ১৩২ দেখেছেন
ট্রেডমার্ক রেজিষ্ট্রেশন করবেন যেভাবে

বাশার আহমেদ:

ট্রেডমার্ক আইন, ২০০৯ এবং আন্তর্জাতিক চুক্তির বিশেষ কিছু নিয়ম অনুসরণ করে শিল্প মন্ত্রণালয়ের অধীন পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্ক অধিদপ্তর হতে যে কেউ ট্রেডমার্ক নিবন্ধনের জন্য আবেদন করতে পারেন। সাধারণত  ৪ (চার) টি ধাপে এই নিন্ধন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। এতে তিনটি ধাপে প্রযোজ্য ফি পরিশোধ করতে হয়।

  • প্রথম ধাপ

ট্রেডমার্ক নিবন্ধনের জন্য নির্দিষ্ট আবেদন ফরম বা টিএম ফরমে সঠিকভাবে ৪(চার) সেট তথ্য পূরণ করতে হবে। পূরণকৃত ফরম যথাযথ ফি (অনুচ্ছেদ-১৩) ও প্রয়োজনীয় দলিলাদিসহ পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্ক অধিদপ্তরের তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে আবেদন জমা দিতে হবে। তথ্য ও সেবাকেন্দ্র সঠিকভাবে পূরণকৃত প্রাপ্ত দরখাস্ত গ্রহণপূর্বক দরখাস্তকারীকে ক্রমিক নম্বরসহ একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র দিবেন। মালিকানা রয়েছে এরূপ কোন ব্যক্তি ট্রেডমার্ক নিবন্ধনের জন্য মালিক নিজে বা আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন। বিদেশী আবেদনকারীর ক্ষেত্রে অবশ্যই এজেন্স বা আইনজীবীর মাধ্যমে আবেদন করতে হবে।

এক্ষেত্রে আবেদন ফি: এক শ্রেণীর এক বা একাধিক ধরনের পণ্য/ সেবার ক্ষেত্রে ৩,৫০০/- (তিন হাজার পাচঁ শত) টাকা এবং সাথে ১৫% ভ্যাট সহ রেজিষ্ট্রার, ডিপিডিটি এর বরাবর যে কোন তফসিল ব্যাংকের বিপরীতে পে-অর্ডার/ব্যাংক ড্রাফট এর মাধ্যমে জমা দিতে হবে।

এখানে উল্লেখ যে, আবেন দাখিলের পূর্বে আবেদনকারী চাইলে, প্রার্থীত মার্কটি ইতোমধ্যে কোন পণ্য/সেবার ক্ষেত্রে নিবন্ধিত/আবেদিত কিনা তা নির্ধারিত ফি ১০০০/- টাকা সহ টিএম-৪ ফরমে আবেদন দাখিলের মাধ্যমে দুই সপ্তাহের মধ্যে জানতে পারবেন।

  • দ্বিতীয় ধাপ

আদেনকারী কর্তৃক দাখিলকৃত মার্কটি আইনের সাথে বা পূর্ববর্তী আবেদীত বা নিবন্ধিত কোন ট্রেডমার্কের সাথে মিল আছে কিনা তা যথাযথভাবে সংশ্লিষ্ট ট্রেডমার্ক পরীক্ষক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখবেন। উক্ত পরীক্ষায় কোন ক্রটি বিচ্যুতি পরিলক্ষিত হলে রেজিষ্ট্রার ট্রেডমার্ক টিএমআর-১২ ফরমে আবেদনকারীকে  অবহিত করবেন। এতে আবেদনকারী নিজে বা আইনজীবীর মাধ্যমে শুনানীর আবেদন করতে পারবেন। উক্ত শুনানী সন্তোষজনক হলে বা ক্রটি বিচ্যুতি পরিলক্ষিত না হলে আবেদনকারীর মার্কটি ট্রেডমার্ক জার্ণালে প্রকাশের জন্য অনুমোদন লাভ করবে।

  • তৃতীয় ধাপ

এই ধাপে অফিস কর্তৃক মার্কটি জার্ণালে প্রকাশ করা হবে এবং মার্কটি জার্ণালে প্রকাশের জন্য প্রযোজ্য ফি ১০০০/-(এক হাজার) টাকা দাখিল করার জন্য টিএমআর-৫ নোটিশ প্রেরণ করা হয়। আবেদনকারী নোটিশ প্রাপ্তির এক মাসের মধ্যে জার্ণাল ফি প্রদান না করলে প্রার্থীত মার্কটি নোটিশ প্রদানপূর্বক পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়। এতে কোন ব্যক্তি আবেদনকৃত মার্কটি সম্পর্কে সংক্ষুদ্ধ হলে বা কোন আপত্তি জানালে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় শুনানী করতে পারবেন। জার্ণালে প্রকাশের দুই মাসের মধ্যে বিরোধীতার আবেদন বা বিপরীত মামলা দাখিল করতে হবে। মামলার ফলাফল নিবন্ধন আবেদনকারীর বিপক্ষে গেলে নিবন্ধনের আবেদনটি প্রত্যাখ্যান করা হবে এবং ফলাফল নিবন্ধন আবেদনকারীর পক্ষে হলে নিবন্ধন প্রদনের লক্ষ্যে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহন করা হবে।

  • চতুর্থ ধাপ

জার্ণালে প্রকাশের পর কোন বিরোধিতার আবেদন না আসলে অথবা আনীত আবেদনের রায় আবেদনকারীর পক্ষে গেলে মার্কটি ট্রেডমার্ক রেজিষ্ট্রিভুক্ত হবে এবং আবেদনকারীর অনুকূলে রেজিষ্ট্রশন সার্টিফিকেট প্রদান করা হবে। উক্ত রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ আবেদনের তারিখ হইতে পরবর্তী সাত বছর পর্যন্ত বলবৎ থাকবে এবং পরবর্তী প্রতি দশ বছর অন্তর অনির্দিষ্ট কাল (উত্তরাধিকার সূত্রসহ) পর্যন্ত তা নবায়ন করা যাবে।

বাশার আহমেদ: আইনজীবী; জজ কোর্ট, ঢাকা।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির অনন্য সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® Deshersamoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Design & Developed By BlogTheme.Com