কুমিল্লা চীফ- জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেড আমলী আদালত-৪ এর নির্দেশে এক মাস পাঁচ দিন পর দেবিদ্বার উপজেলার ১১ নং রাজামেহার ইউনিয়নের চুলাশ গ্রামের নিহত মাইনুদ্দীন @ মুহিনের লাশ দায়েরকৃত হত্যা মামলার তদন্তের প্রয়োজনে ময়নাতদন্তের জন্য ভিকটিম মাইনুদ্দীন @ মুহিনদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফনকৃত কবর থেকে উত্তোলন করা হয়। আজ ২৩-০৮-২০ ইং রোজ রবিবার দুপুর ১২ টা ১৫ মিনিটের সময় আবু বকর সরকার এক্সক্লুসিভ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট,কুমিল্লার উপস্থিতে ভিকটিম মুহিনের লাশ উত্তোলন করা হয়। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক মো. আবদুস সালামসহ পুলিশের একটি টীম।

প্রসঙ্গতঃ গত ১৮ ই জুলাই রাত সাড়ে ৯ টার দিকে একই ইউনিয়নের মরিচা গ্রামের আবুল হাশেম মিয়ার স্কুল পড়ুয়া মেয়ে রিয়া মনি(১৮)’র সাথে প্রেমের সম্পর্কের জের ধরে রিয়া মনির বাবা আবুল হাশেম ও তার দুই ভাই মেহেদি ও জামাল পরিকল্পিত ভাবে মুহিনকে তাদের বাড়ির পাশে শারিরিক নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ করেছেন মুহিনের পরিবার। পরে ২৬ জুলাই মুহিনের বড় বোন আয়শা আক্তার বাদি হয়ে চীফ- জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেড আমলী আদালত-৪ কুমিল্লায় রিয়া মনি সহ চারজনের বিরুদ্ধে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।