শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আলামিয়া- নুরুল ইসলাম স্মৃতি ফাউন্ডেশন এর আয়োজনে পবিত্র কছিদা বুরদা শরীফ খতমে খাজেগান, খতমে শেফা শরীফও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বিদেশে বসে ষড়যন্ত্র করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা যাবে না : হানিফ ইচ্ছে পূরন রক্তদান সংস্থা’র উদ্যােগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস মানবিক শহর গড়তে প্রয়োজন হাঁটা ও সাইকেলবান্ধব পরিবেশ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্টিত হল বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ২০২০ “ দে‌বিদ্বার উপ‌জেলা স্টুডেন্টস অ্যা‌সো‌সি‌য়েশন অব তিতুমীর ক‌লেজ (ডুসা‌ট)’র ক‌মি‌টি ঘোষনা মুজিবের বাংলাদেশে মাওলানা আহমদ শফী দ্বীনের জন্য আমৃত্যু কাজ করেছেনঃ এনডিপি অসহনীয় লোডশেডিংয়ে ডেমড়ায় ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজিবন শাহ আহমেদ শফি’র শেষ বিদায় জানাতে হাটহাজারীতে মানুষের ঢল
ভরা মৌসুমেও রাজধানীতে চালের দাম বাড়তি

ভরা মৌসুমেও রাজধানীতে চালের দাম বাড়তি

ভরা মৌসুমেও রাজধানীতে চালের দাম বাড়তি

ভরা মৌসুমেও রাজধানীর বাজারে বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে চাল। গত একমাস ধরে মান ভেদে সব ধরণের চাল বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৫ থেকে ৯ টাকা বেশি দরে। এর পেছনে যৌক্তিক কোনো কারণ দেখছেন না ক্ষুব্ধ ক্রেতারা।

অবশ্য, বিক্রেতারা দাম নিয়ে একজন আরেকজনকে দুষছেন। খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, আড়তদারদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হচ্ছে চাল। একই কথা বলে মিল মালিকদের দুষছেন আড়তদাররা। আর দাম বাড়ানোর পেছনে পরিবহন সংকটকে দায় দিচ্ছেন মিল মালিকরা।

রাজধানীর প্রায় সব বাজারে গুটিস্বর্ণা ও মিনিকেট চাল কেজিতে ৯ টাকা, নাজিরশাই ও পাইজাম কেজি প্রতি ৭ থেকে ৮ টাকা বেশি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মোটা চাল আটাশ বিক্রি হচ্ছে কেজি প্রতি ৬ টাকা বেশিতে।

বাজারে মৌসুমি ফলের দামও বাড়তি। বিভিন্ন জাতের আম বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ১০০ টাকা কেজিতে। মৌসুম শেষের দিকে হওয়ায় ফলের দাম বেশি বলছেন বিক্রেতারা।

ছুটির দিনে শুক্রবার সকালে বাজারে ক্রেতা-বিক্রেতার ভিড় থাকলেও নেই সামাজিক দূরত্বসহ অন্যান্য বিধি নিষেধ মানার প্রবণতা। বেশিরভাগের মুখেই নেই মাস্ক।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® দেশের সময়.কম কর্তৃক সংরক্ষিত।