মঙ্গলবার, ১১ অগাস্ট ২০২০, ০৭:২৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নলতায় নবকিরণ ফাউন্ডেশনের আয়োজনে কৃতি শিক্ষার্থী সংবর্ধনা, উপহার প্রদান এবং কার্যালয় উদ্বোধন সম্প্রীতি বৃদ্ধি ও গ্রাহক সেবা নিশ্চিতই (এটাব ATAAB) এর প্রধান লক্ষ্য শ্বাসকষ্ট থাকলেও শংকামুক্ত করোনা আক্রান্ত সানাই দেশভাগের পর থেকে একই ভুল করছি আমরা : শোয়েব তিনদিনেও রিমান্ডে নেয়া যায়নি প্রদীপ-লিয়াকতকে ভুল চিকিৎসার অভিযোগে বরুড়া ফেয়ার হসপিটালের দুই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মামলা নিউইয়র্কে কনসুলেটে শহীদ শেখ কামাল এর ৭১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে শেখ কামালের ৭১তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন আমজাদ হোসেনের ইন্তেকাল : মানবাধিকার সমিতির শোক সাবেক সেনা কর্মকর্তার হত্যার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে : জাতীয় মানবাধিকার সমিতি
করোনা কালীন সময়ে প্রাথমিক শিক্ষায় নিবেদিত এক “করোনা যোদ্ধা”

করোনা কালীন সময়ে প্রাথমিক শিক্ষায় নিবেদিত এক “করোনা যোদ্ধা”

করোনা কালীন সময়ে প্রাথমিক শিক্ষায় নিবেদিত এক “করোনা যোদ্ধা”

উত্তম সাহা,হাতিয়া প্রতিনিধি : মোঃ মফিজ উদ্দিন আহমেদ, সহকারী শিক্ষক, দক্ষিণ রাজের হাওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়,হাতিয়া নোয়াখালি। ২০০৬ সাল থেকে তিনি প্রাথমিক শিক্ষার সাথে যুক্ত অাছেন। ২০১৭ সাল থেকে তিনি শিক্ষক বাতায়নের একজন সক্রিয় সদস্য। তিনি প্রাথমিক বিজ্ঞান এবং চারু ও কারুকলা বিষয়ের একজন প্রশিক্ষক।এছাড়া তিনি সাব-ক্লাস্টার সমূহে সম্মানিত সহায়ক হিসেবে বিভিন্ন ক্লাস্টারে সহায়কের দায়িত্ব পালন করে থাকেন। আইসিটিতেও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন এবং আইসিটি প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক।
করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে যখন সমগ্র পৃথিবী স্থবির। অামাদের বাংলাদেশেও যখন এই ভাইরাস তার ভয়ংকর থাবা দিয়েছে। তখন কোমলমতি শিশুদের নিরাপত্তার কথা ভেবে ১৭ মার্চ ২০২০ থেকে বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। এই বন্ধকালিন সময়ে শিশুদের লেখাপড়া চলমান রাখার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করেন।
মোঃ মফিজ উদ্দিন আহমেদ হাতিয়া উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একমাত্র সহকারী শিক্ষক, যিনি অনলাইন লাইভ পাঠদানের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করে ” ঘরে বসে শিখি ” ” বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক @lct”, Noakhali Online school ” “PECE Online Achool ”, Dinajpur online primary school পেইজসহ ” নিজের বিদ্যালয়ের নামে পেইজে এবং তার ফেসবুক আইডিতে নিয়মিত ক্লাস নিচ্ছেন।
প্রতিনিয়ত তিনি মোবাইল ফোনে শিক্ষার্থীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করছেন। শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার অগ্রগতি সহ স্বাস্থ্যবিধি সম্পর্কে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছেন।
হাতিয়া উপজেলার সহকারী উপজেলা সিক্ষা অফিসার বলেন, নিঃসন্দেহে এটি একটি সময়োপযোগী কাজ।আরো বেশি শিক্ষককে Online Class পরিচালনার জন্য এগিয়ে আসলে শিক্ষার্থীদের করোনাকালীন সময়ে ঘরে বসে শিখতে খুবই সুবিধা হবে।
উনার এই প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকুক।সকল অনলাইন শিক্ষক যোদ্ধাদের হাত ধরে এগিয়ে যাক প্রাথমিক শিক্ষাসহ সকল শিক্ষা কার্যক্রম।তার সাফল্য কামনা করছি।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® দেশের সময়.কম কর্তৃক সংরক্ষিত।