রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মুজিবের বাংলাদেশে মাওলানা আহমদ শফী দ্বীনের জন্য আমৃত্যু কাজ করেছেনঃ এনডিপি অসহনীয় লোডশেডিংয়ে ডেমড়ায় ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজিবন শাহ আহমেদ শফি’র শেষ বিদায় জানাতে হাটহাজারীতে মানুষের ঢল নাসিম-সাহারা খাতুন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের পথে থেকে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি সর্বদাই আস্হাশীল ছিলেন-মন্ত্রীবর্গ ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ কুমিল্লার বাসের দরজা-জানালা বন্ধ করে তরুণীকে গণধর্ষণ; আটক ২ পলাতক ১ কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির “ রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ভবন” নির্মিত হতে যাচ্ছে জাজিরায় নদী খননের বালু লুটপাটের মাধ্যমে কোটি কোটি টাকায় বিক্রি যুক্তরাষট আওয়ামী লীগ ও আওয়ামীপরিবারের প্রতিবাদ সভা ফাতেমা জহুরা আক্তার কিশোরগঞ্জ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় আমেরিকার প্রবাসীদের অভিনন্দন
কোটি বাঙালির হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু

কোটি বাঙালির হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু

কোটি বাঙালির হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু

আগস্ট মানেই জাতির জনক হারানোর মাস। এ মাসের পনের তারিখ আমরা আমাদের বাঙ্গালী জাতির জনক কে হারিয়েছিলাম। ১৫ আগস্ট ১৯৭৫, সালে কোটি কোটি বাঙালি তাদের অভিভাবক কে হারিয়ে ফেলেছিল। সারা জাতি স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল, কাঁদতে পারেনি ভয়ে। সে এক অসহনীয় সময়, যন্ত্রণাকাতর দিন-রাত। অভিভাবক হারিয়ে গেছে, বুকে পাষাণভার। তবু চোখ থেকে পানি পড়া বারণ, আর্তি আহাজারি করা বারণ। যে সঙ্গীন কেড়ে নিয়েছিল বাঙালি জাতির জনক আর তার পুরো পরিবারকে, সে সঙ্গীনের ভয়ে কাঁদতে পারেনি বাঙালি জাতি। শুধু যাদের বুকে সঙ্গীন ধরা যায় না সেই স্বাধীন দেশের আকাশ বাতাসে ধূলিকণা কেঁদেছিল, বাঙালি ফেলেছিল নীরব দীর্ঘশ্বাস! কী ভয়ঙ্কর, কী নিষ্ঠুর আর কী ভয়াল ছিল সেই দিন রাত! ওই রাতে স্ত্রী শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, ছেলে শেখ কামাল, শেখ জামাল, ১০ বছরের শিশুপুত্র শেখ রাসেল, দুই পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রাজি জামাল, সহোদর, আত্মীয় পরিজনসহ নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হন জাতির জনক। সেই হত্যাযজ্ঞে আরো শহিদ হন বঙ্গবন্ধুর ছোটভাই মুক্তিযোদ্ধা শেখ আবু নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবত, তার ছেলে আরিফ সেরনিয়াবত, মেয়ে বেবী সেরনিয়াবত, শিশুপৌত্র সুকান্ত বাবু, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃসত্তা স্ত্রী আরজু মণি, নিকটাত্মীয় শহীদ সেরনিয়াবত, আবদুল নঈম খান রিন্টু এবং বঙ্গবন্ধুর জীবন বাঁচাতে ছুটে আসা তার ব্যক্তিগত নিরাপত্তা কর্মকর্তা কর্নেল জামিলউদ্দিন আহমেদসহ কয়েকজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা ও কর্মচারী। বাঙ্গালী জাতি আজও গভীর শোক ও শ্রদ্ধায় স্মরণ করে এসব শহিদকে।পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট মধ্যরাতে গণহত্যা চালালো পাকিস্তানি হানাদারদেরই এদেশীয় দোসর কিছু বিশ্বাসঘাতক, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী কিছু রাজনীতিক। সঙ্গে ছিল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র। সেই ষড়যন্ত্রের শিকার হয়ে বঙ্গবন্ধু নৃশংসভাবে শহিদ হলেন সেই কালরাতে। প্রবাসে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।বঙ্গবন্ধু মাত্র ৫৫ বছরে জীবনে স্বদেশের মাটি আর মানুষকে এমন ভালবাসার বন্ধনে বেঁধেছিলেন যে বন্ধন কোনোদিন ছিন্ন হওয়ার নয়। তাই আজো মানুষ গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করে বঙ্গবন্ধুকে।আল্লাহ্ রাব্বুল আলামিন স্বাধীনতার মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ও তার পরিবারের সকলকে জান্নাতুল ফেরদাউস নসিব করুন।
কলামিষ্ট কবির নেওয়াজ রাজ
এমএসএস”রাষ্ট্রবিজ্ঞান” সি সি “জার্নালিজম” এলএলবি”এফ ই”

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® দেশের সময়.কম কর্তৃক সংরক্ষিত।