রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৪০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
আলামিয়া- নুরুল ইসলাম স্মৃতি ফাউন্ডেশন এর আয়োজনে পবিত্র কছিদা বুরদা শরীফ খতমে খাজেগান, খতমে শেফা শরীফও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বিদেশে বসে ষড়যন্ত্র করে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করা যাবে না : হানিফ ইচ্ছে পূরন রক্তদান সংস্থা’র উদ্যােগে ফ্রি ব্লাড গ্রুপিং ক্যাম্পেইন বিশ্ব ব্যক্তিগত গাড়িমুক্ত দিবস মানবিক শহর গড়তে প্রয়োজন হাঁটা ও সাইকেলবান্ধব পরিবেশ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে অনুষ্টিত হল বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ২০২০ “ দে‌বিদ্বার উপ‌জেলা স্টুডেন্টস অ্যা‌সো‌সি‌য়েশন অব তিতুমীর ক‌লেজ (ডুসা‌ট)’র ক‌মি‌টি ঘোষনা মুজিবের বাংলাদেশে মাওলানা আহমদ শফী দ্বীনের জন্য আমৃত্যু কাজ করেছেনঃ এনডিপি অসহনীয় লোডশেডিংয়ে ডেমড়ায় ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জনজিবন শাহ আহমেদ শফি’র শেষ বিদায় জানাতে হাটহাজারীতে মানুষের ঢল
কেন্দ্রীয় ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ পরিবারের নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে অসত‍্য ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের প্রতিবাদে বিবৃতি

কেন্দ্রীয় ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ পরিবারের নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে অসত‍্য ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের প্রতিবাদে বিবৃতি

কেন্দ্রীয় ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ পরিবারের নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে অসত‍্য ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্যের প্রতিবাদে বিবৃতি

হাকিকুল ইসলাম খোকন ,মো:নাসির,হেলাল মাহমুদ,বাপসনিউজ:ন ৬ আগস্ট, ২০২০।সম্প্রতি স্থানীয় সাপ্তাহিক আজকাল পত্রিকায় ড: সিদ্দিকুর রহমানের একটি সাক্ষাত্কার প্রকাশিত হয়েছে যা আমাদের নজরে এসেছে। তিনি প্রদত্ত সাক্ষাৎকারে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, কৃষিমন্ত্রী ও প্রেসিডিয়াম মেম্বার ড. আব্দুর রাজ্জাক, উপদেষ্টামন্ডলীর সদস‍্য তোফায়েল আহম্মেদ, প্রয়াত সংসদ সদস‍্য আব্দুল মান্নান, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রনেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন তালুকদার ও বাকসু’র সাবেক জিএস, যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ড. প্রদীপ রঞ্জণ কর সহ নেতৃবৃন্দ সম্পর্কে অসত‍্য ও বিভ্রান্তিকর বক্তব্য প্রদান করেছেন।
ড: রহমানের এসকল মিথ্যা অভিযোগগুলি দেশে-বিদেশে আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী পরিবারের কর্মি-সমর্থকদের মধ‍্যে ব‍্যাপক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে। তাই ড: রহমানের এসব মিথ্যাচার ও মনগড়া কল্পকাহিনীর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ড: রহমান বর্নিত এসব ঘটনা সত্যর অপলাপ মাএ। বর্তমান কার্য‍্যকরী কমিটির সদস‍্য ও তার নিজ জন্মস্থান বগুড়ার সারিয়াকান্দীর বাসিন্দা রফিকুল ইসলাম খাজা কার্য‍্যকরী কমিটির এক সভায় সকলের সামনে বলেছেন, সিদ্দিকুর রহমান অতীতে এলাকায় কখনো ছাএলীগ, যুবলীগ এবং আওয়ামী লীগ করেছেন বলে কেউ জানেনা। তিনিদাবী করেছেন, অস্টম শ্রেনীতে পড়াকালীন হামিদূর রহমান শিক্ষা কমিশন রিপোর্টের বিরূদ্ধে আন্দোলন করেছেন(?)।
অন‍্য এক প্রশ্নের জবাবে ড.রহমান বলেছেন, যখন কৃষি ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ ছিল তখন উনি এবং অন‍্যরা ৬৮/৬৯ সালে ছাত্রলীগের কমিটি করেন। বর্তমানে জীবিত ও কথিত সেই কমিটির সভাপতি /সাধারণ সম্পাদক ( কুতুবউদ্দিন এবং রহমত আলী ) উনার কোন ভূমিকা ছিলনা বলে জানিয়েছেন।
এমনকি ৭১সালে মুক্তি যুদ্ধকালীন সময়ে যখন অন‍্যরা যুদ্ধে গেছেন তখন ড. রহমান ক্লাস করেছেন।
স্বাধীনতা পরবর্তি সময়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনে এলে উনি তার সম্বর্ধণাসভা পরিচালনা করেন(?) কিন্তু প্রকত সত‍্য হলো তৎকালীন বাকসু’র সাধারন সম্পাদক ড. আবদুর রাজ্জাক সভা সঞ্চালন করেন। ভিসি সভাপতিত্ব করেন।
ড. রহমান বলেছেন,৭৫ সালে জাতির জনকের শাহাদতের পর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদ মিছিলে নেতৃত্ব(?) দেয়ায় ওয়ারেন্ট ইস‍্যূ হয় এবং প্রতি সপ্তাহে আর্মী ক‍্যাম্পে হাজিরা দিতেন।প্রত্যক্ষ সাক্ষীদের মতে সেসময়ে সেখানে কোন মিছিল হয়নি।
তর্কের খাতিরে যদি ধরে নেই উনার বিরূদ্ধে মামলা ছিল, তাহলে তৎকালীন ক্ষমতাসীন জিয়া সরকার কি করে তাকে স্কলারশীপ দিয়ে যুক্তরাজ্যে পাঠান? একই জিয়া সরকার ৭৯ সালে তিনি দেশে ফেরার অব‍্যবহিত পরেই ৬ মাসের ব‍্যবধানে আবার পিএইচডি করার জন‍্যে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠান? শোনা যায় বঙ্গবন্ধু খুনের নেপথ‍্য নায়ক ও বেনিফিশিয়ারী জিয়ার সাথে সাক্ষাৎ ও তদবির করেই তিনি বিদেশে সরকারি বৃত্তি পান।
প্রবাস জীবনে আওয়ামী লীগ বিরোধী শিবির তথা ভাষানী ন‍্যাপ, বিএনপি-জামাতপন্থী লোকদের সঙ্গেই তার ওঠাবসা, বন্ধূত্ব যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগর উপদেষ্টা কমিটিতে অন্তর্ভূক্তির পূর্ব পর্যন্ত।
বগুড়ার উপনির্বাচনে মনোনয়নপ্রাপ্তি বিষয়ে একাধারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ অন‍্যদের দোষারোপ করেছেন যা অত‍্যন্ত গর্হীত অপরাধ। দলীয় মনোনয়ন বোর্ড যাকে মনোনয়ন দেবে সেখানে অন‍্যদের প্রভাব বিস্তারের সূযোগ কোথায়?
ড. রহমান একজন আপাদমস্তক সংঙ্কারপন্থী। ১/১১ এর সময়ে তার নিউজার্সির বাসায় শেখ হাসিনাকে মাইনাস করতে ষড়যন্ত্রকারী সংস্কারপন্থীদের কেন্দ্রস্থল ছিল। প্রতিরাতেই ঐ বাসা থেকেই নিউইয়ক সিটিতে গোপন সভার মাধ্যমে সংস্কারপন্থীদের সজ্ঞবব্ধ করার চেস্টা করা হোত। ড. রহমান সংস্কারপন্থী সূলতান মনসূরের সম্বর্ধণা সভায় ঢাকা ক্লাবে সভাপতিত্ব করেছেন। অন্য সংস্কারবাদী মরহুম সূরন্জিত সেনগুপ্ত ঐ সময় কানাডা থেকে গোপনে নিউইয়র্ক এসে জ্যকসন হাস্টসে মিটিং করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করলে নেতাকর্মীদের বাঁধার মুখে তার সে চেস্টা ব্যর্থ হয়। সে সময় ড. রহমান সংস্কারপন্থী সেনগুপ্ত বাবুকে নিউইয়র্ক থেকে ড্রাইভ করে ওয়াশিংটন ডিসি নিয়ে গেছেন লবি করতে। এছাড়াও ওয়াশিংটন ডিসিতে তওাবধায়ক সরকারের উপদেস্টা হোসেন জিল্লুরের সাথে সাক্ষাৎ করে শেখ হাসিনাকে মাইনাস ষড়যন্ত্রে ঘি ঢালেন। ড. রহমানের এসবই কর্মকাণ্ড সত‍্য এবং প্রমাণিত ঘটনা।

২০১৭ সালে সন্মেলনের জন‍্যে জননেএী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয় সাবেক দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবান গোলাপ—এর মাধ‍্যমে নির্দেশ দিলে সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠনকল্পে বাউন্সার নিয়ে ইউএস আওয়ামী লীগের দূইটি সভা ডেকে ক্ষমতায় টিকে থাকতে কোন সিদ্ধান্ত ছাড়াই সভা মূলতবী করেন। এখন ক্ষমতা ও জনসমর্থনহীন পতিত এরশাদের ভাগ‍্যবরণ করেছেন তিনি। নেত্রীর সম্বর্ধণা সভায় সভাপতিত্ব করতে না পেরে জনতার কাতারে বসে অশ্রু বিসর্জন দিয়েছেন।’নো মোর সিদ্দিক’ স্লোগান থেকে ধরাশায়ী হয়েছেন মাটিতে কিন্ত পদ ছাড়ছেন না। ইদানিং স্ত্রীকে নিয়ে ৫/৭জন চামচাসহ দলের জন্মদিন/জাতীয় দিবস পালন করে দলের মর্য‍াদা ধূলায় মিশিয়েছেন। জামাত-শিবির-রাজাকার কমিটিতে ঢুকিয়ে ৭৬ এর কমিটি ১৭৬ বানিয়েছেন কিন্ত এখন ক্ষমতাহীন। শিবির নেতা খন্দ: ফেরদৌসের কাছে পাঁচ হাজার ডলার চাঁদা নিয়ে পদ বিক্রি নীজেই স্বীকার করেছেন। বাংলাদেশে বিভিন্ন ব‍্যবসায় জড়িত হয়ে সফলতা পেয়েছেন, টাকা কামিয়েছেন। বছরের ৮/১০ মাস বাংলাদেশে থেকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে প্রবল গ্রুপিং সৃষ্ঠি এবং আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোকে ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করেছেন।
বাংলাদেশের রাস্ট্রপতির সম্বর্ধণা সভায় বিএনপি -জামাতদের অন্তর্ভূক্তির কারণে সভা বাতিল, কেবিনেট মিনিষ্টার লতিফ সিদ্দিকীর ঘরোয়া সভার মন্তব্য ভিডিও মিডিয়ায় প্রকাশ করে তার রাজনৈতিক ক‍্যরিয়ার ধংস করা, ব্রুকলীনে গাফফার চৌধুরীর বিরুদ্ধে জামাত-শিবিরের ডাকা সভায় বক্তব্য দেওয়া ক্ষমার অযোগ‍্য অপরাধ, জাসদের সভায় বঙ্গবন্ধুর সহযোগী ছাত্রলীগের নেতাদের ‘গর্ধভ’ আখ‍্যায়িত করা, ভাষানী ফাউন্ডেশনের সভায় “ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াবার এখনই সময়” বলে বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়া। জাতীয় শোক দিবস ১৫ আগষ্ট পালন কালে ড: রহমানের সহধর্মিনী শাহানারা রহমানের বক্তব্য প্রদানকালে অট্রহাসিতে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন ।এ লজ্জায় আমাদের সকলের মাথা হেইট হয়ে যায়। ড: রহমানের এই সকল দলীয় নিয়ম-নীতি বহির্ভূত ও বিতর্কিত কাজ-কর্মের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ থেকে অচিরেই তার পদত‍্যাগ বা অপসারণ চাই। সাথে সাথে কেন্দ্রীয় ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগ পরিবারের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে মিডিয়ায় বিতর্কিত ও অসত্য বক্তব্য প্রদানে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

স্মাক্ষরকারী নেতৃবৃন্দ:
মুক্তিযোদ্ধা ডঃ প্রদীপ রঞ্জন কর, মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হোসাইন, সিনিয়র সাংবাদিক হাকিকুল ইসলাম খোকন, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন তালুকদার, রমেশ নাথ, মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান চৌধূরী, ইঞ্জিঃ মোহম্মদ আলী সিদ্দিকী, এ্যাডঃ শাহ মোহম্মদ বকতিয়ার, এমএ করিম জাহাঙ্গীর, মেসবা অহমেদ, ফরিদ আলম, শরিফ কামরুল আলম হিরা, ইলিয়ার রহমান, আশাফ মাসুক, অধ্যাপক শাহনাজ মমতাজ, রুমানা আকতার, মঞ্জুর চৌধূরী, আশরাফ উদ্দিন, সুবল দেবনাথ, জাকির হোসেন হিরু ভূইয়া , জালালউদ্দিন জলিল, কায়কোবাদ খান, হেলাল মাহমুদ, ইঞ্জিঃ মিজানুল হাসান, আকতার হোসেন, ছাদেকুল বদরুজামান পান্না, সিরাজুল ইসলাম সরকার, মোল্লা মাসুদ, ইঞ্জি: হাসান, মাহাবুবুল খসরু, শেখ জামাল হোসেন, সবুল মিয়া, মোহম্মদ মাঈনদ্দিন, মোঃ আলমগীর, টি মোল্লা, উলফাৎ মোল্লা, দেলোয়ার হোসেন মোল্লা, নাদের আলী মাষ্টার, মোঃ জামাল বক্স, মোঃ মিজনুর রহমান চৌধূরী, রহিমুজ্জামান সুমন, রিণ্টু লাল দাস, ফরিদা আরভি, আতাউর রহমান তালুকদার, হেলেমউদ্দিন, ইফজাল চৌধূরী, মোঃ আলীমউদ্দিন, শহিদুল ইসলাম, শারমিন তালুকদার ও রাহিমুল হুদা প্রমুখ।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® দেশের সময়.কম কর্তৃক সংরক্ষিত।