মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৫:১৫ পূর্বাহ্ন

ভুল চিকিৎসার অভিযোগে বরুড়া ফেয়ার হসপিটাল বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন

  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০২০
  • ৬৫৪ দেখেছেন
ভুল চিকিৎসার অভিযোগে বরুড়া ফেয়ার হসপিটাল বন্ধের দাবীতে মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টারঃ ভুল চিকিৎসার অভিযোগে কুমিল্লার বরুড়া ফেয়ার হসপিটাল বন্ধ ও অভিযুক্তদের বিচারের দাবীতে মানববন্ধন করা হয়েছে।
ভুল চিকিৎসার স্বীকার উপজেলার পৌর এলাকার বরুড়ার কাসেম শফিউল্লাহ কাজল এর মেয়ে নাফসি জাহান এর সহযোগীরা রোববার বরুড়া বাজারে এ মানববন্ধন করেন।
উল্লেখ্য গত ৯ আগষ্ট নাফসির ভাই তানজিদ শফি অন্তর ফেয়ার হসপিটালের নির্বাহী পরিচালক ডাঃ মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন ও সার্জন ডাঃ মোঃ রাশেদ উজ জামান (রাজিব) এর বিরুদ্ধে কুমিল্লার আদালতে মামলা হরেন।
জানা গেছে, গত ১৩ এপ্রিল ২০২০ ইং তারিখে বরুড়া মৌলভীবাজারে অবস্থিত ফেয়ার হসপিটালে তানজিদ সফি অন্তর এর বোন নাফসি জাহান পেটের ব্যাথা ও বমির উদবেগ নিয়ে ডাঃ মোহাম্মদ ইকবাল হোসেনের কাছে চিকিৎসা নিতে নেন। এ সময় তিনি নাফসি জাহানকে কোনো প্রকার পরীক্ষা নিরিক্ষা ছাড়াই তার পেটে এ্যাপেন্ডিসাইটিস হয়েছে বলে ডাঃ রাশেদ উজ জামান রাজিবকে দিয়ে অপারেশন করান। পরে ডাঃ ইকবাল ও ডাঃ রাজিব অপারেশন থিয়েটার থেকে বের হয়ে তানজিদ সফি অন্তরকে বলেন আপনার বোনের এ্যাপেন্ড্রিসাইটিজ হয়নি। তার পেটে ৫/৫ সাইজের ওভারিয়ন চীষ্টে হয়েছে। ভয়ের কিছু নাই, এটা সব মেয়েদেরই হয়ে থাকে। এটা কেটে ফেলা হয়েছে। পরে নাফসি ২১ এপ্রিল আবারও অপারেশনের স্থানে প্রচন্ড ব্যাথা নিয়ে ডাঃ ইকবালের কাছে আসেন। তিনি নাফসিকে দেখে সেলাইয়ের স্থানে পুঁজ হয়েছে বলে ড্রেসিং করতে বলেন। ২৬ এপ্রিল ও ৫ জুন আবারও নাফসি সেলাইয়ের স্থানে ব্যাথা নিয়ে ডাঃ ইকবালের কাছে আসেন। ডাঃ ইকবাল তাকে নিয়মিত ড্রেসিং করে এন্টিবায়োটিক ও ব্যাথার ঔষধ চালিয়ে যেতে বলেন। পরবর্তীতে নাফসির পেটের ব্যাথার সাথে জ্বর বাড়তে থাকে। ১৪ জুন আবারও ওই ডাক্তারের কাছে গেলে তিনি নাফসিকে আল্ট্টাসনোগ্রাফি ও পশ্রাবের পরীক্ষার রিপোর্টে তার ইনফেকশন হয়েছে বলে হাই এন্টিবায়োটিক ঔষধ খেতে বলেন। ২৪ জুন নাফসির পিরিয়ড এর সাথে অপারেশনের স্থানে প্রচন্ড ব্যাথা আরম্ভ হলে আবারও ফেয়ার হসপিটালে ভর্তি করে করান। পরবর্তীতে আবারও নাফসির পেটে ব্যাথা বেশি দেখা দেয়ায় ৭ জুলাই নিজ উদ্যোগে কুমিল্লা শহরের শেফা ডায়াগনস্টিক ও মেডিনোোভা ডায়াগনস্টিক সেন্টারে আলট্রাসনোগ্রাফি করা হয়। এতে দেখা যায় নাফসির পেটে তার পেটে অপারেশনের স্থানে নরম তুলতুলে কিছু একটা আছে।

এ ঘটনা নাফসির ভাই আদালতে মামলা করলে তা প্রত্যাহার করতে ডাক্তার ইকবাল ও ফেয়ার হসপিটালের লোকজন বিভিন্ন ভাবে তাদের চাপ ও হুমকি ধমকি দেয়। এর প্রতিবাদে নাফসির সহপাঠীরা এ মানববন্ধন করেন। মানববন্ধন শেষে তারা বরুড়া বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

উল্লেখ্য বরুড়া ফেয়ার হসপিটাল ও ডাঃ মোহাম্মদ ইকবাল হোসেনের বিরুদ্ধে এর আগেও একাধিক রোগীকে ভুল চিকিৎসার অভিযোগে মামলা হামলা ও জরিমানা হয়েছে।

ভালো লাগলে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির অনন্য সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি। সর্বসত্ব ® Deshersamoy.com কর্তৃক সংরক্ষিত।
Design & Developed By BlogTheme.Com